ফিল্টার পানির নামে কি পান করছে মানুষ!

 প্রকাশ: ০১ অক্টোবর ২০২১, ১০:৫০ পূর্বাহ্ন   |   জনদুর্ভোগ


সকালে বেড়িয়েছিলাম অফিসের এক গুরুত্বপূর্ণ অ্যাসাইনমেন্ট কাভার করার উদ্দেশে। পোস্তগোলা চীন মৈত্রী সেতুর ওপর টোল প্লাজার পাশে দাঁড়িয়েছিলাম সহকর্মী আসার অপেক্ষায়। হঠাৎ চোখ আটকে গেলো একটি দৃশ্যের ওপর। রাজাবাজার টোল প্লাজার ঠিক পেছনে ব্রিজের নিচে ১৭ থেকে ১৮ বছরের দু’জন ছেলে ভ্যানে করে বেশ কয়েকটি ফিল্টার পানির গ্যালন এনে ড্রেনের পাশে রাখলেন।

মনে কৌতূহল হলো। পথচারীরা রাস্তার পাশের হোটেল, চায়ের দোকানের পানি কিংবা  ফুটপাতে যে শরবতগুলো টাকার বিনিময়ে পান করছেন। আসলে কি ওই পানি ফিল্টার করা, জীবাণুমুক্ত, পরিশোধনীয় পানি? তাদের কর্মকাণ্ড একটু গোপনীয়তা ভাবে ভিডিও, ছবি ক্যামেরা বন্দি করতে লাগলাম নিজেকে আড়াল করে।

প্রথমে তারা ভ্যানগাড়ি থেকে ব্যবহৃত নোংরা ঢাকনাবিহীন পানির গ্যালনগুলো নামিয়ে বিভিন্ন দোকানের নম্বর অনুযায়ী সারিবদ্ধ ভাবে রাখলেন। পরে সাবান পানি দিয়ে গ্যালনগুলোর বাহিরের অংশের ময়লা পরিষ্কার করলেন। এমন ভাবে পরিষ্কার করার চেষ্টা করছে যেনো বোতলগুলো কিছুটা নতুন মনে হয়।

এরপর সেগুলো এক বাড়ির ছাদের ট্যাংক থেকে ওয়াসার পানির পাইপ দিয়ে ধুয়ে আবার ভ্যানে রাখলেন। পরে ওয়াসার ওই নোংরা পানির পাইপ দিয়ে গ্যালনগুলো ভর্তি করছেন আর পলিথিনের ব্যাগে রাখা নতুন ঢাকনা এনে গ্যালনের নতুন মুখ আটকাচ্ছেন।
সব কয়টি পানির গ্যালনে নতুন মুখ থাকায় মনে হয় কোন পানির ফ্যাক্টরি থেকে রিফাইন ও ফিল্টার করে জীবাণুমুক্ত ও পরিশোধিত পানি ভরা হয়েছে।
এরপর তারা ভ্যানগাড়ি নিয়ে নিজেদের উদ্দেশে ওই স্থান ত্যাগ করলেন।
স্থানীয় এক বৃদ্ধ জলিল মৃধা বলেন, পানি নেওয়ার জন্য ওই ব্যক্তিরা প্রতিদিন এখানে আসে। তবে পানি ভর্তি বোতলগুলো কোথায় বিক্রি করা হয় তা জানা নেই। তিনি আরও বলেন, মানুষকে টাকার বিনিময়ে নোংরা, জীবাণুযুক্ত পানি পান করাচ্ছেন কিছু অসাধু ব্যবসায়ীরা।  এ ধরণের পানি বাজারে বিক্রি অন্যায়।