আপনার কী দরকার, সেটা আগে নিজের সাথে বোঝাপড়া করে নিন

 প্রকাশ: ২৬ নভেম্বর ২০২১, ০৯:২৭ পূর্বাহ্ন   |   সম্পাদকের কথা


(এহছান খান পাঠান)
আমি গ্রামের ছেলে। ছেলেবেলায় দেখতাম দৈনন্দিন যা প্রয়োজন সব হাট বাজার থেকেই কেনা হয়ে যেত। বাবার সাথে শার্ট কিনতে গেলে টেকেরহাটের সবথেকে বড় দোকানের বড়জোর ৮/১০ টা ডিজাইনের শার্ট থেকে ১০ মিনিটের মধ্যে পছন্দসই শার্ট কেনা হয়ে যেত।
ঢাকায় এসে দেখলাম ভিন্ন ব্যাপার। এটা পছন্দ না হলে লোকজন ঐটা দেখায়, তাও পছন্দ না হলে আরেকটা দেখায়। এক শোরুমের পছন্দ না হলে রয়েছে সারি সারি শোরুম। ট্রেন্ড অনুসরণ করবেন নাকি ব্র্যান্ড কিনব? তাছাড়া পয়সা দিয়ে পছন্দ করে যখন কিনব, দেখেশুনে সেরা জিনিসটা কিনবনা না কেন?
সব মিলিয়ে জটিল অবস্থা। “জটিল হইসে মাম্মা” জাতীয় জটিল না, আক্ষরিক অর্থে জটিল।
শেষ পর্যন্ত পছন্দ করে শার্ট কিনলেও , ফেরার সময় মন বারবার খুঁতখুঁত করতো। ঠকলাম না তো? এইটার চাইতে সেইটাই বেশি সুন্দর ছিল না তো?
হাতে অনেক অনেক অপশন, তখন বেশ কয়েকটা ব্যাপার ঘটতে পারে। যেমন অনুতাপবোধ, অনুমিত অনুতাপবোধ, সেলফ ব্লেইম, ছোটখাটো ডিপ্রেশন ।
যখন আপনার হাতে অনেক চয়েজ, স্বাভাবিকভাবেই আপনার প্রত্যাশা বেড়ে যাবে। কিন্তু মনে রাখতে হবে প্রত্যাশা যেখানে অল্প, সুখ সেখানে বেশি। সুতরাং সেটা বেছে নিন যেটা আপনার দরকার। আপনার কী দরকার, সেটা আগে নিজের সাথে বোঝাপড়া করে নিন।
(এহছান খান পাঠান, নির্বাহী সম্পাদক, দৈনিক অর্থনীতির কাগজ, ঢাকা)


সম্পাদকের কথা এর আরও খবর: