নিষেধাজ্ঞা তুলে নিচ্ছে সৌদি আরব : বিদেশি মুসল্লিদের জন্য চালু হচ্ছে পবিত্র ওমরাহ

 প্রকাশ: ২৫ জুলাই ২০২১, ১১:৩৩ অপরাহ্ন   |   ধর্ম


হজ এবং ওমরাহ পালনের জন্য প্রতি বছর সারা বিশ্ব থেকে লাখ লাখ মানুষ সৌদি আরব ভ্রমণ করে থাকেন। মুসলিম ধর্মালম্বীদের এই দুইটি বিধান পালন করতে একই স্থাপনা ভ্রমণ করতে হয়।করোনা মহামারির কারণে পর পর দুই বছর সীমিত পরিসরে শেষ হয়েছে পবিত্র হজের আনুষ্ঠানিকতা।  বিশ্বের কয়েকটি দেশে করোনার দ্বিতীয় ও তৃতীয় ঢেউ ছড়িয়ে পড়ায় সংক্রমণ এড়াতে এ বছর ‘বিশেষ শর্ত’ অনুযায়ী হজ আয়োজন করেছে সৌদি আরব সরকার।করোনা মহামারির কারণে এতদিন বিদেশিদের সৌদি আরবে গিয়ে  হজ  ও ওমরাহ পালনের অনুমতি দেয়নি দেশটি। এবার সেই নিষেধাজ্ঞা তুলে নিচ্ছে সৌদি আরব।সৌদির হজ ও ওমরাহ বিষয়ক জাতীয় কমিটির সদস্য হানি আল-ওমাইরি আল আরাবিয়াকে বিশেষ সাক্ষাৎকারে জানিয়েছেন পহেলা মহররম (১০ আগস্ট) থেকে বিদেশিদের সৌদি আরবে গিয়ে ওমরাহ করার অনুমতি দেবে দেশটি। ওমরা পালনে বিদেশ থেকে আগতদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে করোনাভাইরাস সংক্রান্ত সব ধরনের সাবধানতা এবং নিয়ম-কানুন কঠোরভাবে মেনে চলতে হবে। তবে কোন কোন দেশ থেকে যাওয়ার অনুমতি দেয়া হবে, সেই তালিকা প্রকাশ করেনি সৌদি আরব।
করোনা মহামারি বিশ্বজুড়ে ছড়িয়ে পড়ার আগে প্রতিবছর সারা বিশ্ব থেকে ২৫ লাখের বেশি মানুষ হজ পালন করতে সৌদি আরবের পবিত্র নগরী মক্কা ও মদিনায় যেতেন।এছাড়া, সারা বছরই ওমরাহ পালন করতে গোটা বিশ্ব থেকে হাজার হাজার মুসলমান সৌদি আরবে যান। হজ থেকে সৌদি আরব প্রতিবছর প্রায় ১ হাজার ২শ’ কোটি মার্কিন ডলার আয় করে।

ইতিহাসে প্রথমবার নারীদের মক্কা ও মদিনার নিরাপত্তারক্ষী হওয়ার অনুমতি দিয়েছিলো সৌদি সরকার। ফলে পবিত্র হজে এবার মক্কা-মদিনায় প্রথমবারের মতো পুরুষদের পাশাপাশি নারী রক্ষীরাও দায়িত্ব পালন করে। জ্যাকেট ও পাজামা পরিহিত এই নারী নিরাপত্তরক্ষীরা সৌদি আরবের প্রথাগত পোশাকের বাইরে বেরিয়ে একটি উদাহরণ তৈরি করেছেন। তেলের ওপর থেকে অর্থনৈতিক নির্ভরশীলতা কমাতে সৌদি যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমানের ২০৩০ সালের লক্ষ্যমাত্রার অংশ হিসেবে এই পরিকল্পনা নেওয়া হয়েছে। বিদেশি, বিশেষ করে পশ্চিমা পর্যটকদের আকৃষ্ট করতে বড় বড় পরিকল্পনা হাতে নিয়েছে রিয়াদ।সৌদি আরবের অধিকাংশ বিদেশি পর্যটক ইসলামের দুই পবিত্র নগরী মক্কা ও মদিনাতেই ঘোরাফেরা সীমিত রাখেন।প্রতি বছর একবারই ইসলামের পাঁচ স্তম্ভের অন্যতম হজ অনুষ্ঠিত হয়। এক হাজার বছরের বেশি সময় ধরে সৌদি আরবের পর্যটন মূলত হজ ও উমরাহকেন্দ্রিক। এবার তেলের উপর নির্ভরশীলতা কমাতে এই পর্যটন খাতকেই আরও বিস্তৃত করার পরিকল্পনা নিয়েছে সৌদি সরকার।
 বছরের বাকি সময় উমরাহর জন্য মুসলিম পর্যটকরা সৌদি আরবে আসেন। তবে অমুসলিম পর্যটকদের আকৃষ্ট করতে ২০১৯ সালের সেপ্টেম্বরে ই-ভিসা চালু করে রিয়াদ। কিন্তু ২০২০ সালে করোনা মহামারির কারণে সেই উদ্যোগ সাফল্যের মুখ দেখেনি। উল্টো ধর্মভিত্তিক পর্যটনও বড় ধাক্কা খেয়েছে।