ইমরানের অভিযোগ প্রমাণ হলে রাজনীতি ছাড়বেন শেহবাজ!

 প্রকাশ: ০৬ নভেম্বর ২০২২, ১০:১৯ অপরাহ্ন   |   আন্তর্জাতিক



পাঞ্জাবের ওয়াজিরাবাদে লংমার্চে হামলার ঘটনার নেপথ্যে তিনজন জড়িত বলে জানিয়েছেন পাকিস্তান তেহরিক-ই-ইনসাফের (পিটিআই) চেয়ারম্যান ও সাবেক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। যাদের মধ্যে একজন পাকিস্তানের বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেহবাজ শরীফ।



ইমরানের এমন অভিযোগকে চ্যালেঞ্জ জানিয়েছেন সাবেক পাক প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরীফের ভাই শেহবাজ। তিনি ইমরানের ওপর হামলার ঘটনা তদন্তে প্রধান বিচারপতি উমর আতা বান্দিয়ালকে ফুল কোর্ট কমিশন গঠনের অনুরোধ করেছেন। এও বলেছেন, অভিযোগ প্রমাণিত হলে তিনি রাজনীতি ছেড়ে দেবেন।


শনিবার (৫ নভেম্বর) লাহোরে এক সংবাদ সম্মেলনে ফুল কোর্ট কমিশন গঠনের অনুরোধ ও রাজনীতি ছেড়ে দেবেন বলে ঘোষণা দেন শেহবাজ। তিনি বলেন, প্রধান বিচারপতির উচিত হবে বিশৃঙ্খলা ও সংশয় এড়াতে ফুল কোর্ট কমিশন গঠন করা। যদি আমার আবেদন না শোনেন তাহলে ভবিষ্যতে প্রশ্ন উঠবে।


তিনি আরও বলেন, আমাকে জিজ্ঞাসাবাদ করার জন্য যেখানে ডাকা হবে আমি যাবো। এ বিষয়ে প্রধান বিচারপতিকে শিগগির একটি চিঠি লিখবেন বলে তিনি জানান। শেহবাজ মনে করে, চিঠিটি বিচারের জন্য গ্রহণ করা হবে। তাই দেশের স্বার্থে এই কমিশন গঠন জরুরি।


পিটিআই চেয়ারম্যানের ওপর হামলায় জড়িত থাকাদের কঠিন শাস্তির কথাও বলেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী। ইমরানকে উদ্দেশ্য করে তিনি বলেন, আপনি প্রধানমন্ত্রী, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ও এক সামরিক কর্মকর্তাকে এ ঘটনায় জড়িত বলে অভিযোগ তুলেছেন। আমি যদি এর পেছনে থেকে থাকি, যদি আমার বিরুদ্ধে কোনো ষড়যন্ত্র প্রমাণিত হয়, কথা দিচ্ছি রাজনীতি ছেড়ে দেব।


যেদিন ইমরানের ওপর হামলা হয় সেদিন চীন ফেরত শেহবাজ সংবাদ সম্মেলন করতে চেয়েছিলেন। কিন্তু অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনার কারণে তিনি সেটি বাতিল করেন। তিনি বলেন, আমি ঘটনার জানার পরপরই সংবাদ সম্মেলন বাতিল করে দিয়েছিলাম। আমি আপনার ও অন্যান্য আহতদের দ্রুত সুস্থতাও কামনা করি। এটি অত্যন্ত ন্যক্কারজনক ও নিন্দনীয় ঘটনা।


পিটিআই প্রধানকে তার অভিযোগের ব্যাপারে তথ্য-উপাত্ত উপস্থাপনের আহ্বান জানিয়েছে শেহবাজ বলেন, যখন মিথ্যা তথ্য দিয়ে জাতিকে ধ্বংসের দিকে ঠেলে দেওয়া হচ্ছে; তখন আমার দায়িত্ব জনগণকে রক্ষায় ইতিবাচক ভূমিকা পালন করা। আমি তা করছি।


বৃহস্পতিবার রাজধানী ইসলামাবাদ অভিমুখে লং মার্চের সপ্তম দিন ইমরান খানকে লক্ষ্য করে গুলি চালানো হয়। এ ঘটনায় তিনিসহ আহত হন ৭ জন। একজনের মৃত্যু হয় ঘটনাস্থলে। হামলাকারীকেও গ্রেফতার করা হয়েছে। লাহোরের শওকত খানম হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ইমরান দুয়েকদিনের মধ্যে বাড়ি ফিরবেন বলে জানিয়েছেন তার নেতাকর্মীরা।


সূত্র: জিও নিউজ