চোরাকারবারির মরদেহ ফেরত দিলো বিজিবি

 প্রকাশ: ০৯ অক্টোবর ২০২১, ০৯:৩৩ অপরাহ্ন   |   সামরিক প্রশাসন


 ফেনসিডিলসহ আটকের পর রাজশাহীর পদ্মায় ঝাঁপ দিয়ে পালাতে গিয়ে মারা যাওয়া ভারতীয় চোরাকারবারির মরদেহ হস্তান্তর করা হয়েছে।  

শনিবার (৯ অক্টোবর) দুপুরে ভারতীয় সীমান্ত রক্ষী বাহিনীর (বিএসএফ) কাছে ভরত মণ্ডলের (৩৩) মরদেহ হস্তান্তর করে বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি)।


ভরত মণ্ডল ভারতের মুর্শিদাবাদ জেলার রানিনগর থানার চকরাজাপুর পশ্চিম কলোনি গ্রামের তারপদ মণ্ডলের ছেলে।  

দুপুরে রাজশাহী সীমান্তের ১০ নম্বর পদ্মার চর বর্ডার আউট পোস্টের (বিওপি) আওতাধীন ১৫৯/২-এস সীমান্ত পিলারের কাছে পতাকা বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। ওই বৈঠকের বিএসএফ’র কাছে মরদেহ হস্তান্তর করে বিজিবি। এ সময় সেখানে নৌ-পুলিশ, কাটাখালী থানা পুলিশও উপস্থিত ছিল।

এর আগে গত ২ অক্টোবর দিনগত রাতে ফেনসিডিল নিয়ে রাজশাহী সীমান্তে প্রবেশের পর ভরত মণ্ডল বিজিবির হাতে ধরা পড়েন। তাকে আটক করে নদীপথে নিয়ে আসছিল বিজিবি। কিন্তু হাতকড়া পরা অবস্থায় ভরত মণ্ডল নামের ওই মাদক চোরাকারবারি পদ্মা নদীতে ঝাঁপ দিয়ে পালানোর চেষ্টা করেন।

এতে করে পদ্মা নদীতে ডুবে তার মৃত্যু হয়। পর দিন রাজশাহী সীমান্তেই তার মরদেহ পাওয়া যায়। মরদেহ উদ্ধার করে একজন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটের সামনে তার সুরতহাল প্রতিবেদন করা হয়। ময়নাতদন্তের জন্য রাজশাহী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়।  

ভরত মণ্ডলের মরদেহ হস্তাস্তরের আইনি প্রক্রিয়ার জন্য ময়নাতদন্তের পর হাসপাতালের হিমঘরে রাখা হয়েছিল। এ ঘটনায় কাটাখালী থানায় অপমৃত্যুর মামলা করে বিজিবি।

রাজশাহী বিজিবির-১ ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক লেফটেন্যান্ট কর্নেল সাব্বির আহমেদ বলেন, মরদেহ হস্তান্তরের জন্য কিছু আইনগত প্রক্রিয়া থাকে। এ কয়েকদিনে সেগুলো শেষ করা হয়েছে। এরপর আজ আনুষ্ঠানিকভাবে মরদেহ হস্তান্তর করা হয়।

সামরিক প্রশাসন এর আরও খবর: