মাইলফলক ছুঁয়ে রোমারিও-রোনালদোর কাতারে নেইমার

 প্রকাশ: ২২ মে ২০২২, ০১:১৩ অপরাহ্ন   |   খেলাধুলা



কিলিয়ান এমবাপ্পের সঙ্গে পিএসজির চুক্তি নবায়ন নিয়ে সরগরম ফুটবলবিশ্ব। ফলে অনেকটা আড়ালেই পড়ে গেছে নেইমার জুনিয়রের কীর্তি। মেঁতের বিপক্ষে এমবাপ্পের হ্যাটট্রিকের মাঝে এক গোল করেছেন ব্রাজিলিয়ান ফরোয়ার্ডও। আর সেই গোল তাকে নিয়ে গেছে নতুন উচ্চতায়, যেখানে তার সামনে আছেন শুধু রোমারিও এবং ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো।
ফরাসি লিগ ওয়ানে গতকাল দিবাগত রাতে মেঁতের বিপক্ষে ৫-০ গোলের ব্যবধানে জিতেছে আগেই শিরোপা নিশ্চিত করা পিএসজি। দলটির জন্য তুলনামূলক অগুরুত্বপূর্ণ ম্যাচ হলেও এর গুরুত্ব বেড়ে গেছে এমবাপ্পের জন্য। রিয়াল মাদ্রিদকে 'না' বলে আরও ৩ বছর প্যারিসে থাকার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন ফ্রান্সের বিশ্বকাপজয়ী ফরোয়ার্ড। তবে এই ম্যাচটি আরও একজনের জন্য 'বিশেষ' হয়ে থাকবে।  

চলতি লিগ মৌসুমে পিএসজির শেষ ম্যাচটিতে এমবাপ্পের হ্যাটট্রিকের পাশাপাশি ১টি করে গোল করেছেন নেইমার ও আনহেল দি মারিয়া। এর মধ্যে নেইমারের গোলটি আবার রেকর্ডের খাতায় যুক্ত হয়েছে। ফুটবল ইতিহাসের মাত্র তৃতীয় খেলোয়াড় হিসেবে ৩টি ভিন্ন ভিন্ন ক্লাবের হয়ে ১০০ বা তার বেশি গোলের মাইলফলক স্পর্শ করেছেন নেইমার। এর আগে একই কীর্তি গড়েছেন তার স্বদেশী কিংবদন্তি রোমারিও এবং পর্তুগিজ উইঙ্গার রোনালদো।

পেশাদার ক্যারিয়ারের শুরুতে সান্তোসে খেলেছেন নেইমার। ব্রাজিলিয়ান জায়ান্টদের জার্সিতে তিনি ২২৫ ম্যাচে ১৩৬ গোল করেছিলেন। এরপর বার্সেলোনায় পাড়ি জমিয়ে ১৮৬ ম্যাচ খেলে করেছিলেন ১০৫ গোল। আর পিএসজিতে ১০০তম গোল করতে তিনি খেলেছেন ১৪৪ ম্যাচ।

পেশাদার ফুটবলে তিনটি ভিন্ন ভিন্ন ক্লাবের জার্সিতে ১০০ গোলের কীর্তিতে সবার আগে নাম লিখিয়েছিলেন রোমারিও। সাবেক ব্রাজিলিয়ান ফরোয়ার্ড পিএসভি আইন্দোভেন, ভাস্কো দা গামা এবং ফ্ল্যামেঙ্গোর জার্সিতে ১০০ বা তার বেশি গোল করেছিলেন। তবে ৩ জনের মধ্যে রোনালদোর কীর্তি সবচেয়ে উজ্জ্বল। কারণ ইউরোপীয় ফুটবলের ৩টি শীর্ষ ক্লাবের (ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড, রিয়াল মাদ্রিদ ও জুভেন্টাস) জার্সিতে গোলগুলো করেছিলেন তিনি। এছাড়া জাতীয় দলের জার্সিতেও তার গোলের সংখ্যা ১০০-এর বেশি। ৩টি ক্লাব ও জাতীয় দলের জার্সিতে ১০০-এর বেশি গোলের রেকর্ডে তিনিই প্রথম।

এখনও গোলসংখ্যায় রোমারিও ও রোনালদোর চেয়ে ঢের পিছিয়ে নেইমার। কিন্তু দুই কিংবদন্তির সঙ্গে এক কাতারে ঠিকই নাম লেখালেন তিনি। তবে একটি পরিসংখ্যানে তাদের দুজন তো বটেই, বাকি সবাইকেই ছাপিয়ে গেছেন নেইমার। ৩টি ভিন্ন ভিন্ন ক্লাবের জার্সিতে ৫০টির বেশি অ্যাসিস্টের কীর্তি আছে একমাত্র তারই। আধুনিক ফুটবলে এই কীর্তিতে এখন পর্যন্ত তিনিই প্রথম। সেই সঙ্গে ব্রাজিলের জার্সিতে সবচেয়ে বেশি গোল ও অ্যাসিস্টের রেকর্ডেও নাম লেখানোর পথেই আছেন নেইমার।