নুরের বিরুদ্ধে রাষ্ট্রদ্রোহ মামলা নিতে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে চিঠি

 প্রকাশ: ০৯ জুলাই ২০২৩, ০১:২৮ অপরাহ্ন   |   রাজনীতি


ডাকসুর সাবেক ভিপি নুরুল হক নুরের বিরুদ্ধে রাষ্ট্রদ্রোহ মামলা রুজুর অনুমতি চেয়ে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে চিঠি দিয়েছে সুপ্রিম কোর্টের অ্যাডভোকেট মো. জিশান মাহমুদ৷


রোববার (৯ জুলাই) স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের জননিরাপত্তা বিভাগের সিনিয়র সচিবের দপ্তরে এ চিঠি দেওয়া হয়৷


জননিরাপত্তা বিভাগের সিনিয়র সচিবকে দেওয়া আবেদনে বলা হয়েছে, গত ৩ জানুয়ারি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে জানতে পারি বাংলাদেশ গণঅধিকার পরিষদ নাম তথাকথিত রাজনৈতিক দলের সদস্য ও ডাকসুর সাবেক ভিপি নুরুল হক নুর ওমরাহ হজ করার কথা বলে সংযুক্ত আরব আমিরাতের দুবাইয়ে গিয়ে অস্বীকৃত ইসরাইল রাষ্ট্রের গোয়েন্দা সংস্থা মোসাদের এজেন্ট মেন্দি এন সাফাদির সঙ্গে বৈঠক করে বাংলাদেশের নির্বাচিত সরকার উৎখাতে দেশবিরোধী ও রাষ্ট্রবিরোধী ষড়যন্ত্রে লিপ্ত হয়েছেন।


পরবর্তীতে ওই সংবাদকে সম্পূর্ণ ভিত্তিহীন ও মিথ্যা অপপ্রচার বলে নুরুল হক নুর তা বারবার উড়িয়ে নিলেও গত ২২ জুন ঢাকাস্থ ফিলিস্তিন দূতাবাসে রোহিঙ্গাদের জন্য ইসলামি সহযোগিতা সংস্থা (ওআইসি) খাদ্য সহায়তা বিষয়ে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে ঢাকায় নিযুক্ত ফিলিস্তিনের রাষ্ট্রদূত ইউসুফ এস ওয়াই রামাদান সাংবাদিকদের অবহিত করেন, গণঅধিকার পরিষদের নেতা নুরুল হক নুর মোসাদের সঙ্গে বৈঠক করেছেন বলে আমরা জানতে পেরেছি।


তিনি আরও বলেন, মোসাদের সঙ্গে বৈঠক বাংলাদেশের নিরাপত্তার জন্য হুমকি। যারা মোসাদের সঙ্গে বৈঠক করেন, তারা নেতা হতে পারেন না।


আবেদনে বলা হয়েছে, ফিলিস্তিন রাষ্ট্রদূতের এহেন বক্তব্যের প্রেক্ষিতে দেশের সমস্ত ইলেক্ট্রনিক ও প্রিন্ট মিডিয়ার পাশাপাশি বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে তোলপাড় শুরু হলে গত ৮ জুলাই সময় টিভিতে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে অস্বীকৃত ইসরাইল রাষ্ট্রের গোয়েন্দা সংস্থা মোসাদের এজেন্ট মেন্দি এন সাফাদি স্বীকার করেন যে, ২০২২ সালের ২৮ ডিসেম্বর দুবাইয়ের সিটি সেন্টারে অবস্থিত স্টার বাক্স কফি শপে ৩ ঘণ্টার বৈঠক করে বাংলাদেশের আগামী নির্বাচন জিততে আন্তর্জাতিক সহযোগিতার জন্য মেন্দি এন সাফাদির সাহায্য চান নূর।


নূর ক্ষমতায় আসলে ইসরাইলের সঙ্গে বাংলাদেশের সম্পর্ক উন্নয়নের প্রতিশ্রুতিও দেন। ইহুদিদের সমর্থন পেতে নুরুল হক নুর ফিলিস্তিনের স্বাধীনতাকামী মানুষকে সন্ত্রাসী সংগঠন হিসেবে আখ্যা দিয়েছেন, যা বাংলাদেশের জনগণের প্রতি অপমানজনক, অগ্রহণযোগ্য।


সরকার উৎখাতে নুর সাফাদির সঙ্গে বৈঠক করেছেন দাবি করে আবেদনে বলা হয়েছে, যা রাষ্ট্রের স্বাধীনতা ও সার্বভৌমত্বের উপর হুমকিস্বরূপ বিধায় নুরুল হক নুর ওরফে ভিপি নুর দণ্ডবিধির ১২৩ক/১২৪ক/৫০৫ ধারার আওতায় শাস্তিযোগ্য অপরাধ করেছেন, যা রাষ্ট্রদ্রোহিতার অপরাধ হিসেবে গণ্য হবে। তাই তার বিরুদ্ধে ওই ধারায় মামলা করতে আগ্রহী।


এতে আরও বলা হয়েছে, যেহেতু ফৌজদারি কার্যবিধি আইনের ১৯৬ ধারার বিধান মোতাবেক রাষ্ট্রদ্রোহিতার অভিযোগ আমলে নেওয়ার পূর্বশর্ত হিসেবে সরকারের অনুমোদন প্রয়োজন থাকায় আপনার কাছে আবেদন নুরের বিরুদ্ধে মামলা রুজু করার জন্য আমার অনুকূলে অনুমোদন প্রদান করে বাধিত করবেন৷



রাজনীতি এর আরও খবর: