সীমান্তে মিয়ানমারের তৎপরতা: জাতিসংঘে যাওয়ার কথা বললেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

 প্রকাশ: ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২২, ০৪:১২ অপরাহ্ন   |   রাজনীতি


সীমান্তে মিয়ানমারের তৎপরতা: জাতিসংঘে যাওয়ার কথা বললেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী
সীমান্তে মিয়ানমারের মর্টার শেল বিস্ফোরণসহ নানা তৎপরতার শান্তিপূর্ণ সমাধান চায় বাংলাদেশ। অন্যথায় বিষয়টি জাতিসংঘে উত্থাপন করা হবে বলে জানিয়েছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল।


শনিবার (১৭ সেপ্টেম্বর) রাজধানীর ধানমন্ডিতে নিজ বাসভবনে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে তিনি এ কথা জানান।

রাষ্ট্রদূতকে ডেকে এনে প্রতিবাদ করার পরও মিয়ানমার সীমান্তে মর্টার শেল ছোড়া অব্যাহত রেখেছে। এ বিষয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, আমরা যুদ্ধ চাই না, স্পষ্ট কথা। আমরা চাই এটারও শান্তিপূর্ণ সমাধান। আমাদের প্রচেষ্টা অব্যাহত থাকবে শান্তিপূর্ণভাবে এটা সমাধান করতে। আমরা সেই চেষ্টাই করছি। আমাদের পক্ষ থেকে যদি না হয়, আমরা বিষয়টি জাতিসংঘের কাছে তুলব।

তিনি বলেন, গতকাল (১৬ সেপ্টেম্বর) একটা রোহিঙ্গা গ্রুপ মিয়ানমারের সীমানার পাশে জিরো লাইনে অবস্থান করছিল। জিরোলাইন মানে আমাদের সীমানা এবং তাদের সীমানার মাঝখানে যে একটা জিরোলাইন থাকে, সেইখানে এই ক্যাম্পটি অবস্থিত। সেই ক্যাম্পে আমরা দেখলাম গোলাবারুদের আঘাতে একজন মারা গেছে এবং বেশ কয়েকজন আহত হয়েছে।

আমরা এটার তীব্র ভাষায় নিন্দা করছি। আমরা শিগগিরই তাদের এ অবস্থান পরিবর্তন করে এই গোলাবারুদ বন্ধ করার জন্য প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি। আমাদের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এ ব্যাপারে কাজ করছে। আমরা মনে করি, তারা তাদের ভুল বুঝতে পারবে, তারা সংযত থাকবে। ভবিষ্যতে এ ধরনের কাজ করবে না।

মিয়ানমারের এ ধরনের তৎপরতায় নতুন করে রোহিঙ্গা অনুপ্রবেশের শঙ্কা নিয়ে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী বলেন, বর্ডার দিয়ে রোহিঙ্গারা যেন না আসে, সেটার ব্যবস্থায় আমাদের বিজিবি, কোস্ট গার্ড করছে। তার পরও দু-একজন জীবনের ঝুঁকি নিয়ে আসছে। আমরা তাদের পুশব্যাক করে আবার ফিরিয়ে দিচ্ছি। এ ধরনের ঘটনা হচ্ছে।

এখন যে গোলাগুলি, সেটা নিয়ে আমরা বলছি, তারা তাদের ভেতরে যে কনফ্লিক্ট, সেটা তাদের ভেতরেই করতে হবে। আমাদের দিকে যাতে না আসে, সে জন্য আমরা প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি এবং এটা নিয়ে আমাদের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়, তারা আরও শক্তভাবে বিষয়টি উত্থাপন করবে। আমরা শান্তিপ্রিয়। আমরা শান্তি রক্ষার্থে যা যা করার করব।

মিয়ানমার সীমান্তে বিদ্রোহী আরাকান আর্মির সঙ্গে লড়াই চলছে বার্মিজ সেনাবাহিনীর। বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ির তমব্রু কোনারপাড়া সীমান্তে শুক্রবার (১৬ সেপ্টেম্বর) রাতে মিয়ানমার সেনাবাহিনীর ছোড়া চারটি মর্টার শেল এসে পড়ে। এতে শূন্যরেখার রোহিঙ্গা ক্যাম্পের এক যুবক নিহত হন। আহত হয় রোহিঙ্গা শিশুসহ ৫ জন।